১৬ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ | ১লা অক্টোবর, ২০২০ ইং

করোনাভাইরাস এর মত মহামারীগুলো কি ১০০ বছর পরপর আসে?

covid-19-coronavirus
covid-19-coronavirus

স্যোশাল মিডিয়াতে আজকাল প্রায়ই শেয়ার হতে দেখা যাচ্ছে একটা কথা। করোনাভাইরাস এর মত মহামারীগুলো নাকি ঠিক একশো বছর পর পর পৃথিবীতে তান্ডব চালাচ্ছে। হিসেবটা নাকি এরকমই গানিতিক নিয়মে হচ্ছে। বিষয়টা ইতোমধ্যেই ভাইরাল টপিক। অনেকেই বিভিন্ন তথ্য, উপাত্ত দিয়ে যাচ্ছেন এর স্বপক্ষে।

তো চলুন একটু চোখ বুলিয়ে আসি পৃথিবীতে মানব জাতীর উপর তান্ডব চালানো এযাবত বড় বড় মহামারীগুলোর সময়কাল এ:

অ্যান্টোনাইন প্লেগ (১৬৫ – ১৮০ সাল): ৫০ লাখ মৃত্যু।

জাস্টিনিয়ানের প্লেগ (৫৪১ – ৫৪২ সাল): ৩ থেকে ৫ কোটি মৃত্যু।

জাপানি স্মলপক্স (৭১৫ – ৭৩৭ সাল): ১০ লাখ মৃত্যু।

ব্ল্যাক ডেথ – বাবোনিক প্লেগ (১৩৪৭ – ১৩৫১ সাল): ২০ কোটি মৃত্যু। ইউরোপের প্রায় অর্ধেক লোক মারা গেছিলো। দুশো বছর সময় লেগেছিলো আবার সেই সংখ্যক জনসংখ্যা সৃষ্টি হতে। মৃত্যুর দিক দিয়ে এটিই এখন পর্যন্ত ভয়ংকরতম মহামারী।

plague-in-earth

পৃথিবীর ইতিহাসে সর্ববৃহৎ মহামারী প্লগে এ প্রায় ২০ কোটি মানুষ মারা যায়

 

স্মল পক্স (১৫২০ সাল): ৫.৬ কোটি মৃত্যু।

১৭ শতাব্দীর গ্রেট প্লেগ (১৬৬৫ সাল): ৩০ লাখ মৃত্যু।

এশিয়ান ফ্লু (১৬৬৫ সাল): ১১ লাখ মৃত্যু।

১৮ শতাব্দীর গ্রেট প্লেগ (১৮০০ সাল): ৬ লাখ মৃত্যু।

কলেরা মহামারী (১৮১৭ – ১৮২৪ সাল): ১০ লাখ মৃত্যু।

মহামারী কলেরা প্রায় ১০ লাখের বেমি মানুষের মৃত্যু ঘটায়

ইয়েলো ফিভার (১৮০০ সাল): ১.৫ লাখ মৃত্যু।

তৃতীয় প্লেগ (১৮৫৫ সাল): ১.২ কোটি মৃত্যু।

রাশিয়ান ফ্লু (১৮৮৯ – ১৮৯০ সাল): ১০ লাখ মৃত্যু।

স্প্যানিশ ফ্লু (১৯১৮ – ১৯১৯ সাল): ৪ থেকে ৫ কোটি মৃত্যু।

হংকং ফ্লু (১৯৬৮ – ১৯৭০ সাল): ১০ লাখ মৃত্যু।

HIV/AIDS (১৯৮১ – এখন পর্যন্ত): 2.5 ২.৫ থেকে ৩.৫ কোটি মৃত্যু।

SARS (২০০২ – ২০০৩ সাল): ৭৭০ মৃত্যু।

সোয়াইন ফ্লু (২০০৯ – ২০১০ সাল): ২ লাখ মৃত্যু।

MERS (২০০৯ – এখন পর্যন্ত): ৮৫০ মৃত্যু।

ইবোলা (২০১৪ – ২০১৬ সাল): ১১.৩ হাজার মৃত্যু।

COVID-19 বা করোনাভাইরাস (২০১৯ – ৩০ মে ২০২০ পর্যন্ত): ৩ লাখ ৭১ হাজার ৭ মৃত্যু

 

করোনাভাইরাস বৈশ্বিক মহামারীতে রুপ নিয়েছে:

পৃথিবীতে বর্তমান আতংকের নাম করোনাভাইরাস মহামারী

২০১৯-২০২০ এর করোনাভাইরাস বৈশ্বিক মহামারীতে রুপ নিয়েছে। বৈশ্বিক মহামারী বলতে করোনাভাইরাস রোগ ২০১৯ (কোভিড-১৯)-এর বিশ্বব্যাপী প্রাদুর্ভাব ও দ্রুত বিস্তারের চলমান ঘটনাটিকে নির্দেশ করা হয়েছে।

এই রোগটি একটি বিশেষ ভাইরাসের কারণে সংঘটিত হয়, যার নাম গুরুতর তীব্র শ্বাসযন্ত্রীয় রোগলক্ষণসমষ্টি সৃষ্টিকারী করোনাভাইরাস ২ (SARS-CoV-2) রোগটির প্রাদুর্ভাব প্রথমে ২০১৯ সালের ডিসেম্বর মাসে চীনের হুপেই প্রদেশের উহান নগরীতে শনাক্ত করা হয়। ২০২০ সালের ১১ই মার্চ তারিখে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা রোগটিকে একটি বৈশ্বিক মহামারী হিসেবে স্বীকৃতি দেয়।

২০২০ সালের ৩০ মে পর্যন্ত প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী বিশ্বের ১৮৫ টিরও বেশি দেশ ও অধীনস্থ অঞ্চলে ৩০ লক্ষেরও বেশি ব্যক্তি করোনাভাইরাস রোগ এ আক্রান্ত হয়েছেন বলে সংবাদ প্রতিবেদনে প্রকাশ পেয়েছে। এদের মধ্যে ৩ লক্ষ ৭১ হাজারের ও বেশি মানুষের মৃত্যু ঘটেছে এবং ৯ লাখ ১৮ হাজারের বেশি রোগী সুস্থ হয়ে উঠেছে।

তথ্যসূত্র : Internet

 4,734 total views,  13 views today

Please Like & Share
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

1 Comment on "করোনাভাইরাস এর মত মহামারীগুলো কি ১০০ বছর পরপর আসে?"

  1. ব্ল্যাক ডেথ – বাবোনিক প্লেগ (১৩৪৭ – ১৩৫১ সাল): ২০ কোটি মৃত্যু। ইউরোপের প্রায় অর্ধেক লোক মারা গেছিলো। দুশো বছর সময় লেগেছিলো আবার সেই সংখ্যক জনসংখ্যা সৃষ্টি হতে। মৃত্যুর দিক দিয়ে এটিই এখন পর্যন্ত ভয়ংকরতম মহামারী। কি ভয়াবহ ব্যাপার!

Leave a comment

Your email address will not be published.


*